বিটকয়েন কি ও এটা কিভাবে কাজ করে

গত একবছর ধরে  বিটকয়েন বেশ ট্রেন্ডিং এ আছে। কারণ এই সময়টাতে বিটকয়েনের রেট বেশ বেড়ে চলছে। যার ফলে সবার মাঝে জানার আগ্রহটাও দিন দিন বেড়ে চলছে। বিটকয়েনটা আসলে কি? কিভাবে এটা কাজ করে? কেনো দিন দিন এর দাম বেড়েই চলছে? এইসব বিষয় ক্লিয়ার করতে পোস্টটি লেখা।

বিটকয়েন কিঃ বিটকয়েন ওয়ার্ল্ড ওয়াইড একটি ক্রিপ্টোকারেন্সি এবং ডিজিটাল পেমেন্ট সিস্টেম । এককথায় বললে  ই-কারেন্সি।  আরো একটু খোলাসা বলতে গেলে – লোকাল লেনদেন এর জন্য  দেশ অনুযায়ী যেমন টাকা,ডলার,পাউন্ড,রুপি  ইত্যাদি নামে আলাদা আলাদা কারেন্সি আছে। ইন্টারনেট বেজডও ই-কারেন্সি আছে। যেমনঃ বিটকয়েন,ইথিরাম,লাইটকিয়েন ইত্যাদি। তবে এখনো এগুলো অতটা জনপ্রিয় হয়ে উঠেনি যার ফলে ক্রিপ্টোকারেন্সী বিষয়টা কিছুটা অজানা বিষয়। তবে গত একবছর ধরে বিটকয়েন ট্রেন্ড এ থাকায় অনেকের মনে আগ্রহ জেগেছে এই বিষয়টা নিয়ে। যাইহোক, বিটকয়েন মূলত তৈরী করেছে সাতসী নাকামত নামক অজানা একজন প্রোগ্রামার । যেটার  নির্দিষ্ট কোন কন্ট্রোল মাধ্যম নেই,ফিজিক্যাল কোন লেনদেন মাধ্যম নেই এবং কোন নির্দিষ্ট এরিয়া নেই। যে কেউ যেকোন কান্ট্রি থেকে অনলাইন এ লেনদেনের একটি মাধ্যম হিসেবে ব্যবহার করতে পারবে। অনেকের ধারনা ভবিষ্যত প্রজন্ম যেমন ইন্টারেন্ট বেজড নির্ভর হয়ে যাবে ঠিক তেমনি ইন্টারেন্টবেজড একটি ই-কারেন্সিও সারা ওয়ার্ল্ডের একটি কারেন্সি হিসেবে কাজ করবে। আর হয়তো সেটা হতে যাচ্ছে বিটকয়েন।

বিটকয়েন কিভাবে কাজ করেঃ টাকা যেহেতু ফিজিক্যাল কারেন্সি আর এর মাধ্যম হিসবে যেমন ফিজিক্যালি ১ টাকা,৫০০ টাকা,১০০০ টাকা ইত্যাদি হিসবে লেনদনে করে থাকি। ঠিক তেমন বিটকয়েনেও আছে সাতসী (১০ কোটি সাতসীতে ১ বিটকয়েন হয়।)। এটি যেহেতু অনলাইন  বেজড তাই  এটা জমা রাখার মাধ্য্যম হিসেবে বিভিন্ন ওয়ালেট আছে। যেমন কয়েনবেজ,ব্লকচেইন ইত্যাদি। আমাদের দেশে যেমন অন্য দেশের কারেন্সীর মান অনুযায়ী  এক্সেঞ্জের মাধ্যমে একটি রেট হিসেব করে টাকায় কনভার্ট করা হয় ঠিক তেমনি বিটকয়েন কারেন্সীকেও কনভার্ট করা যায়। তবে খুব কম সংখ্যক কান্ট্রিতে এটা লিগ্যালি কনভার্ট করা যায়।  এর মধ্যে আমাদের বাংলাদেশেও এখনো লিগ্যাল হয়নি। তাই আপনার ইনকাম করা কোন বিটকয়েন লিগ্যালি বাংলাদেশি কারেন্সিতে এক্সেঞ্জ করতে পারবেন না। আর হ্যা এক্সেঞ্জের কারনে যেমন ডলার,পাউন্ড এর রেট বাড়ে ঠিক তেমনি বিটকয়েনের রেট বাড়ে । যেহেতু বিটকয়েনের নির্দিষ্টভাবে কারো কন্ট্রোলে নেই সাথে এরিয়াও নেই। তাই হুর হুর করে বারে আবার কমে।

Leave a Reply

Your email address will not be published.

3 × four =